ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
227
দেবীদ্বারে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের ৯৮ তম জন্মদিন পালিত
Published : Monday, 15 April, 2019 at 6:34 PM
দেবীদ্বারে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের ৯৮ তম জন্মদিন পালিতএ,বি,এম আতিকুর রহমান বাশার ঃ

বাংলাদেশের প্রগতিশীল রাজনীতিতে আলো ছড়ানো অনন্য ব্যক্তিত্ব মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে মুজিবনগর প্রবাসী সরকারের উপদেষ্টামন্ডলীর একমাত্র জীবিত উপদেষ্টা, ১৯৭১-এ ন্যাপ, কমিউনিস্ট পার্টি ও ছাত্র ইউনিয়ন’র যৌথ উদ্যোগে গঠিত বিশেষ গেরিলা মুক্তিবাহিনীর অন্যতম উদ্যোক্তা, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ)’র সভাপতি জননেতা অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ’র ৯৮তম জন্ম বার্ষিকী ১৪ এপ্রিল (১ বৈশাখ) পালিত হয়েছে।
 
রোববার সকালে দেবীদ্বার উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ন্যাপ’র যৌথ উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে কেক কাটা, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিনটি উদযাপন করা হয়।

দেবীদ্বার উপজেলা ন্যাপের সাধারন সম্পাদক মমিনুর রহমান বুলবুলের সঞ্চালনায় ও উপজেলা ন্যাপের সভাপতি বাবু অনিল চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ওই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদ্য নির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি হাজী জয়নুল আবেদীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রবীন্দ্র চাকমা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বেগম সামছুননাহার, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কুমিল্লা জেলা সভাপতি আবুল বাশার, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান ভূইয়া, জেলা পরিষদের সদস্য শিরিন সুলতানা, ভাইস চেয়ারম্যান হাজী আবুল কাশেম ওমানী, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক বাবুল হোসেন রাজু ভিপি ও প্রভাষক মোঃ সাইফুল ইসলাম শামীম প্রমুখ। আলোচকগন অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমেদ’র বর্নঢ্য কর্মজীবন তুলে ধরেন। 

ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) এর সভাপতি বর্ষীয়ান রাজনীতিক অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ ১৯২২ সালের ১৪ এপ্রিল কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম কেয়াম উদ্দিন ভূইয়া আর মায়ের নাম আফজারুন্নেছা। তিনি দেবীদ্বার উপজেলার হোসেনতলা প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেনী, দেবীদ্বার রেয়াজউদ্দিন মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৩৯ সালে মেট্টিক ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে আই.এ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে সম্মানসহ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি গ্রহণ করেন এবং ইউনেস্কো থেকে একটি ডিপ্লোমা লাভ করেন।

মোজাফফর আহমদ এর রাজনৈতিক জীবন অত্যন্ত বর্ণিল। তাঁর রাজনৈতিক জীবনের সূচনা ১৯৩৭ সালে। ছাত্রাবস্থায় বৃটিশবিরোধী ছাত্র সংগঠন ছাত্র ফেডারেশনের সাথে তিনি যুক্ত ছিলেন। তিনি ১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগে অধ্যাপনা করেন ১৯৫২ থেকে ১৯৫৪ সাল পর্যন্ত। ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপনা ছেড়ে পুরোপুরিভাবে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন।
১৯৫৪ সালের সাধারণ নির্বাচনে নিজ জেলা কুমিল্লার দেবীদ্বার আসনে মুসলিম লীগের শিামন্ত্রীকে পরাজিত করে তাক লাগিয়ে দেন রাজনীতির ময়দানের সবাইকে। আওয়ামীলীগের বিরোধিতা সত্ত্বেও ১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল পূর্ববঙ্গ প্রাদেশিক পরিষদে ন্যাপ এর প্রতিনিধি নেতা হিসেবে অধ্যাপক মোজাফফর আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসনের প্রস্তাব উত্থাপন করেছিলেন। সামরিক শাসক আইয়ুব সরকার তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ও হুলিয়া জারি করে ১৯৫৮ সালের দিকে। তাঁকে ধরিয়ে দিলে পুরস্কার প্রাপ্তির ঘোষণা পর্যন্ত করা হয়। আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় তিনি আইয়ুবি শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন সুসংগঠিত করেন। দীর্ঘ আট বছর আত্মগোপনে থাকার পর ১৯৬৬ সালে তিনি প্রকাশ্য রাজনীতিতে প্রত্যাবর্তন করেন। ১৯৫৭ সালের ২৭ জুলাই মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর নেতৃত্বে ন্যাপ গঠন প্রক্রিয়ায়ও যুক্ত ছিলেন তিনি। ১৯৬৭ সালে পূর্ব পাকিস্তান ন্যাপের সভাপতি নির্বাচিত হন। অবিভক্ত পাকিস্তান ন্যাপেরও তিনি ছিলেন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক। ১৯৬৯ সালে আইয়ুব সরকারবিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে তিনি কারাবরণও করেছেন।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতাযুদ্ধের সময়কার স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের অন্যতম উপদেষ্টা ছিলেন অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ। উপদেষ্টা পরিষদ এর অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে ছিলেন মাওলানা ভাসানী, কমরেড মণি সিংহ, মনোরঞ্জন ধর। তিনি স্বাধীনতার পে আন্তর্জাতিক সমর্থন আদায়ের ল্েয বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সফর করেন। সে সময় তিনি জাতিসংঘে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধিত্ব করেন। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ন্যাপ-সিপিবি-ছাত্র ইউনিয়ন এর সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ গেরিলা মুক্তিবাহিনী সংগঠনে অধ্যাপক আহমদের ভূমিকা অবিস্মরণীয়।

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ১৯৭৯ সালে অধ্যাপক মোজাফফর সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮১ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হলে তিনি ন্যাপ, সিপিবি এবং প্রগতিশীল শক্তির পে প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। স্বৈরাচারী শাসক এরশাদ-বিরোধী আন্দোলনের শুরুতে অধ্যাপক আহমদ কারারুদ্ধ হন। রাজনীতি জীবনে তিনি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, সোভিয়েত ইউনিয়ন, বুলগেরিয়া, অস্ট্রিয়া, দণি ইয়েমেন, লিবিয়া, আফগানিস্তান, ভারত, মধ্যপ্রাচ্যসহ পূর্ব ও পশ্চিম ইউরোপের নানান দেশে সফর করেন। দেশপ্রেমে জাগ্রত রাজনৈতিক কর্মি সৃষ্টির প্রয়াসে মদনপুরে প্রতিষ্ঠা করেন উপমহাদেশের একমাত্র শিায়তন 'সামাজিক বিজ্ঞান পরিষদ'। তাঁর লেখা উল্লেখযোগ্য বই- ‘সমাজতন্ত্র কি এবং কেন’, ‘প্রকৃত গণতন্ত্র তথা সমাজতন্ত্র সম্পর্কে জানার কথা’, ‘মাওবাদী সমাজতন্ত্র ও কিছু কথা’।

বাংলাদেশ সরকার ২০১৫ সালে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদকে ‘স্বাধীনতা পদক’ দেয়ার ঘোষণা দিলে তিনি তা সবিনয়ে প্রত্যাখ্যান করেন।

বাম প্রগতিশীল আন্দোলনের পথিকৃৎ, প্রাজ্ঞ রাজনীতিক, লেখক ও চিন্তাবিদ অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ রাজধানীর বারিধারার বাসায় রয়েছেন। তিনি অসুস্থ। হাসপাতালের মতো বাসাতেই তার চিকিৎসা চলছে। সেবা ও দেখভাল করেন তার স্ত্রী ও ন্যাপের কার্যকরী সভাপতি আমিনা আহমদ এমপি এবং একমাত্র মেয়ে ও ন্যাপের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য আইভি আহমদ। পরিবারের প থেকে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের আশু সুস্থতা কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চাওয়া হয়েছে।
 
 





সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};