ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
174
আর্সেনিকের ঝুঁকি কমাতে তিন হাজার নলকূপ স্থাপন
Published : Wednesday, 15 May, 2019 at 4:51 PM
আর্সেনিকের ঝুঁকি কমাতে তিন হাজার নলকূপ স্থাপনগোপালগঞ্জে আর্সেনিকের ঝুঁকি কমাতে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ-বছরে স্থাপন করা হচ্ছে ৩ হাজার ২৩৭টি গভীর নলককূপ।

আর এই গভীর নলকূপ স্থাপনের মাধ্যমে গোপালগঞ্জের পাঁচ উপজেলায় শহর থেকে গ্রাম পর্যায়ের সাধারণ মানুষ সুপেয় পানি পানের সুযোগ পাচ্ছে। বসতবাড়ি থেকে শুরু করে স্কুল,কলেজ, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, গীর্জায় এখন পাওয়া যাচ্ছে আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি।

এখন আর সুপেয় পানির জন্য এ গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে যেতে হয় না। নিজের বাড়িতে গভীর নলকূপ না থাকলেও পাশের বাড়িতেই রয়েছে ডিপ-টিউবওয়েল। বাড়ির মেয়েরাই পাশের বাড়ি থেকে অর্সেনিকমুক্ত পানি সংগ্রহ করে খাবার পানি হিসেবে ব্যবস্থা করছে।

এখনো গোপালগঞ্জ জেলার যে সকল বাড়িতে গভীর নলকুপ স্থাপন হয়নি সে সকল বাড়িতে গভীর নলকুপ স্থাপন করা দরকার বলে জেলার সুপেয় পানি পান থেকে বঞ্চিতরা জানান।

গোপালগঞ্জ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর সুত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থ বছরে পানি সরবরাহে আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পে ২ হাজার ১২টি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে।

এরমধ্যে গোপালগঞ্জ সদরে ৪৬৮টি, টুঙ্গিপাড়ায় ১শতটি, কোটালীপাড়ায় ২৮৪টি, কাশিয়ানীতে ৪৮৩টি এবং মুকসুদপুরে ৬৯৭টি।

পানি সরবরাহে আর্সেনিক ঝুঁকি নিরসন প্রকল্পে গোপালগঞ্জ সদরের ১১টি ইউনিয়নে ১৫৭টি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে।

এ ছাড়াও অগ্রাধিকারমূলক গ্রামীণ পানি সরবরাহ প্রকল্পে সাধারণ বরাদ্দ ও অতিরিক্ত মিলে ১ হাজার ৬৮টি গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে। এরমধ্যে গোপালগঞ্জ সদরে ১৭৮টি, টুঙ্গিপাড়ায় ১৭৮টি, কোটালীপাড়ায় ১৭৮টি, কাশিয়ানীতে ৩৫৬টি এবং মুকসুদপুরে ১৭৮টি।

আগামী অর্থ-বছরে ৫ হাজার ৬শ’সাব-মার্সিবল পাম্পসহ গভীর নলকূপ, ৪২টি গ্রামীণ পাইপ ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্প, ১০টি সিডকো প্লান্ট, ১০টি রিভার্স অসমোসিস প্লান্ট, আর্সেনিক আয়রন রিমোভাল প্লান্ট ২ হাজারের চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম সুপারুল আলম টিকে বলেছেন, আমার ইউনিয়নে আরও অন্ত:ত ২শ’ গভীর নলকূপের প্রয়োজন রয়েছে। এই ২’শ গভীর নলকূপ স্থাপন করতে পারলে আমার ইউনিয়নের কোন বাড়িতে আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানির সমস্যা থাকবেনা। আমি আমার ইউনিয়নে ২শ’গভীর নলকূপ স্থাপন করার দাবি করছি।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু বলেছেন, আমার উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আমার কাছে গভীর নলকুপের আবেদন নিয়ে হাজারো লোক আসে। কিন্তু যথেষ্ট বরাদ্দ না থাকায় তাদের দিতে পারি না। আমার উপজেলায় আরও তিন হাজার গভীর নলকূপের চাহিদা রয়েছে। আমি এই তিন হাজার গভীর নলকূপ বরাদ্ধ পেলে সদর উপজেলায় কোন পরিবারে আর্সেনিকমুক্ত পানি পানের সমস্যা থাকবে না।

গোপালগঞ্জ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক চন্দ্র তালুকদার বলেছেন, গোপালগঞ্জের পাঁচ উপজেলার ৬৮টি ইউনিয়নে সুপেয় পানি পানের সুবিধার জন্য চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ-বছরে স্থাপন করা হচ্ছে ৩ হাজার ২৩৭টি গভীর নলকূপ।

আর এই গভীর নলকূপ স্থাপনের মাধ্যমে গোপালগঞ্জের পাঁচ উপজেলার শহর থেকে গ্রাম পর্যায়ের সাধারণ মানুষ সুপেয় পানি পানের সুযোগ পাচ্ছে। বসতবাড়ি থেকে শুরু করে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, গীর্জায় এখন পাওয়া যাচ্ছে আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি।

এখনো গোপালগঞ্জ জেলার অসংখ্য পরিবারে গভীর নলকূপ স্থাপন হয়নি সে সকল পরিবারের সুপেয় পানি পানের জন্য আগামী অর্থ-বছরে ৫ হাজার ৬শ’সাব-মার্সিবল পাম্পসহ গভীর নলকুপ, ৪২ টি গ্রামীন পাইপ ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্প, ১০টি সিডকো প্লান্ট, ১০টি রিভার্স অসমোসিস প্লান্ট, আর্সেনিক আয়রন রিমোভাল প্লান্ট ২ হাজারটির চাহিদা পাঠানো হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী বরাদ্দ পাওয়া গেলে গোপালগঞ্জ জেলার একটি পরিবারও আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি পান থেকে বঞ্চিত থাকবে না। 





© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};