ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
134
মেহেদীর লহরি
Published : Tuesday, 11 June, 2019 at 12:00 AM
মেহেদীর লহরিমেহেরুন্নেছা ||

সভ্য দুনিয়ায় কবে থেকে আমার পাতার রঙ নারীর হাত-রাঙাতে ব্যবহার শুরু হয়েছিলো তা এ জীবনে আর আমার পক্ষে জানা সম্ভব হয়ে উঠেনি।
সরকার বাড়ির কাছারীঘর পার হয়ে ঘাটার আগে যাওয়ার পথে শেফুদের ঘরের দাওয়া সংলগ্ন উঠোনে বেড়ে উঠেছি আমি।
বাবা-মা হারা শেফু আর তার একটি মাত্র বড় ভাই দাদীর আশ্রয়ে থাকে।
একদিন দাদী-নাতিনের আলাপ থেকে বুঝে গেলাম আমার প্রাণের দোসর শেফু প্রেমে পড়েছে। তার ভালোবাসার মানুষটির নাম মুরাদ; যে কিনা তার বড় ভাই এর বন্ধু।
কিন্তু একদা প্রেমের সবুজ ধান ক্ষেতে মৃদুমন্দ সমীরণে খেলে যাওয়া ঢেউয়ে আঘাত হানলো হঠাৎ ছুটে আসা দমকা বাতাস।
কোথা থেকে এক বিয়ের প্রস্তাব এনেছে তার বড় মামা। ছেলে উচ্চশিক্ষিত, সরকারি চাকুরে। কিন্তু গায়ের রঙ কিঞ্চিত ময়লা; তার উপর এটা ছেলেটির দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের এক বছরের মাথায় ছেলেটির বউ সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে সন্তানসহ মারা যায়।
রাতে শেফু তার দাদীকে ফিসফিসিয়ে মুরাদের কথা জানায়।
নাতিনের মুখে মুরাদের কথা শুনেই দাদী উষ্মা প্রকাশ করলেন। চোখে-মুখে বিরক্তিমাখা কণ্ঠে বললেন, "এটা হয় না শেফু। মুরাদের পরিবারে সেই একমাত্র লেখাপড়া করছে। তারা খুবই গরীব। তার বাবা আমাদের বাড়ি থেকে যাকাত-ফিতরা খুঁজে খুঁজে নিয়ে ছেলেকে পড়ায়। কি করে তোরে এখানে বিয়ে দেই?"
---"দাদী, আমি সব মেনে নেবো।"
---"কোনোদিনও তোর ভাই মানবেনা। ভালোয় ভালোয় তুই মুরাদের খপ্পর থেকে বের হয়ে আয়।"
----"দাদী এটা হতে পারেনা। আমি এমন দোবর্গা ছেলেকে চাইনা। যদি জোর করোতো আমার মরা মুখ দেখবে।"
-----"শেফু, চুপ কর অভাগী! এইতান কোনো কথা, না কথার জাত! তোর ভালোর জন্যইতো তোর ভাই বিয়ে ঠিক করেছে। ছেলে কত বড় চাকুরী করে! ধনী পরিবারের সন্তান। তুই কইলাম এই সংসারে আগুন জ্বালাইছ না।"
এমন সময় টিনের চালে নারিকেলের টরা টুক করে পড়লো। জোরে জোরে পাতাসহ ডালের ঘর্ষণ লাগছে চালের গায়ে। শোঁ শোঁ বাতাস বইছে। ঝড় আসছে ধেয়ে। দাদী শেফুকে ধমকের সুরে বললেন, " আলো, তোর মনের কষ্টতো সাময়িক। এটা বয়সের দোষ। বিয়ের পর যখন সুখে থাকবি তখন সব ভুইল্যা যাবি। আমরা তোর সারা জীবনের সুখের জন্যইতো এতো নানানতান করছি।"
আমি মেহেদী গাছ। শেফুর সাথে আমার অন্তরঙ্গতা অনেক কাল ধরে। শেফুর কষ্টতো আমারও কষ্ট।
পরদিন শেফুকে দেখতে আসবে। আমার বুক ধড়ফড় করছে। শেফুর ভাগ্যে জানি কি ঘটতে যাচ্ছে? আমি দিব্যি শুনছি এ বিয়েতে মত দেয়ার জন্য তাকে তার দাদী এবং ভাই কি পরিমাণ পীড়াপিড়ি করছে। শেফু এক পর্যায়ে চিৎকার দিয়ে বললো, " আমার পক্ষে এখানে বিয়ে করা সম্ভব না।" সাথে সাথে তার ভাই শেফুর তুলতুলে গালে, মাথায় থাপড়াতে লাগলো। দাদী গিয়ে হুমড়ি খেয়ে পড়লো। বাড়ির অন্যান্যরা এগিয়ে আসলো। কিন্তু এগিয়ে আসলে কি হবে; মুরুব্বীদের সাফ কথা,
"এমন পাত্র কোনো অবস্থাতেই হাত ছাড়া করা যাবেনা। "
যথারীতি শেফুর বিয়ে হয়ে গেলো।
প্রায় বছর পাঁচেক পরের কথা। শেফু শহর থেকে নাইয়ূর এসেছে বাপের বাড়ি। জামাই বাবাজী দুদিন থেকে চলে গেছেন।
শেফুর দাদী শেফুর বিয়ের দু' বছরের মাথায় মারা যান। তিনি বেশ আফসোস করতেন, শেফুর ঘর আলো করে নায়-নাত্তুর দেখে যেতে পারলেন না।
সেদিন বিকেলে উত্তর পাড়া থেকে এক দঙ্গল নারী-শিশু এলো মেহেদী পাতা নিতে। সুরে সুরে সবাই গীত গাইতে আরম্ভ করলো। হৈ-চৈ আর গুঞ্জরণ শুনে শেফু এসে আগদুয়ারের দৌড়ে বসলো। স্বভাবসুলভ কণ্ঠে জিজ্ঞেস করলো,
" ও চাচী! কার তেলাই? কার জন্য মেন্দী? "
----"ও মা! এ যে আমাগো শেফু! কবে আইলা মা? ঢাকায় থাইক্যা আরো সুন্দর অইয়া গেছো।
একেবারে রাজরানীর লাহান!"
-----" আগো চাচী নাহ! কি যে বলেন!"
শেফু তার রূপের প্রশংসায় লজ্জা পেলো। কিছুবাদে আবারো জিজ্ঞেস করলো, " চাচী মেন্দী পাতা কার তেলাইর লাইগ্যা ?"
----"মুরাদের তেলাই। মুরাদের বিয়া ঠিক অইছে।
মিজি বাইর খসরুর মাইয়ার লগে।"
শেফুর মনোলোকে কে যেনো বেদম জোরে হাতুড়ি পেটাচ্ছে। ভেতর থেকে কান্না মোচড় দিয়ে উঠলো।
হায় নিয়তি! নিয়তি যে তার ভালোবাসার বীণার তার পাঁচ বছর আগেই ছিঁড়ে ফেলেছে।
সবাই মেহেদী পাতা নিয়ে চলে গেলো।
অনেক রাত। উঠোনে বইছে কনকনে শীতের বাতাস। অকস্মাৎ কোনো এক রাতের পাখি ডানা ঝাপটিয়ে একগাছ থেকে আরেক গাছে আশ্রয় নিলো।
শেফু দরজার কাঠে কাত করে মাথা রাখলো। উঠোন ভর্তি কুয়াশা। কুয়াশার আভরণ আমার তীক্ষè দৃষ্টির কাছে মাথা নত করলো। আমি দেখলাম শেফুর গন্ডদেশ বেয়ে অঝোরে পানি ঝরছে। মনরে মন! মন যারে চায়, জীবন যে কেবল সেদিকেই ধায়।
লেখক: সহযোগী অধ্যাপক, উদ্ভিদবিজ্ঞান।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ।







© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};