ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
174
৭ লাখ টাকায় সংস্কার, হস্তান্তরের ৬ দিনেই ব্যবহার অনুপযোগী!
Published : Wednesday, 10 July, 2019 at 12:00 AM, Update: 10.07.2019 2:17:13 AM
৭ লাখ টাকায় সংস্কার, হস্তান্তরের ৬ দিনেই ব্যবহার অনুপযোগী!মোহাম্মদ আবদুর রহিমঃ
লাকসামে সংস্কার কাজ শেষে কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তরের মাত্র ৬ দিনের মাথায় গতকাল মঙ্গলবার বৃষ্টির পানিতে এ স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির মেঝে সয়লাব হয়ে যায়। বৃষ্টির পানিতে ওষুধপত্র ও আসবাবপত্রসহ মূল্যবান নথিপত্র ভিজে একাকার। এতে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী সাধারণ ও ডাক্তার ভোগান্তিতে পড়ে।
জানা গেছে, লাকসাম পৌরশহরের থানা কমপ্লেক্সের অদূরে অবস্থিত লাকসাম উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি প্রায় দেড়শ’ বছর আগে এ অঞ্চলের সাধারণ মানুষের চিকিৎসার্থে স্থাপন করা হয়। জমিদার আমলে প্রায় ৭০ শতক ভূমির উপর প্রতিষ্ঠত এ উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি নানা সমস্যায় জর্জরিত। গত ১৩ই মার্চ সংস্কার কাজ শুরু হয়। প্রায় ৭ লাখ টাকায় মেসার্স কলি এন্টারপ্রাইজ চৌচালা টিনশেড স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি একচালায় রূপ দিয়ে সংস্কার শেষে গত ৩রা জুলাই উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করেন। কিন্তু হস্তান্তরের গতকাল ৬ দিনের মাথায় সামান্য বৃষ্টিতেই চাল গড়িয়ে ভেতরে পানি পড়ে মেঝে সয়লাব হয়ে যায়। এতে ওষুধ, আসবাবপত্র, নথিপত্র ভিজে যায়। ভোগান্তিতে পড়ে রোগীসাধারণ ও চিকিৎসক-কর্মচারী।
অভিযোগ রয়েছে- উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি সংস্কার কাজে নতুন ফ্যান দেয়ার কথা থাকলে পুরনো ফ্যান দিয়ে কাজ চালিয়ে দেয়া হয়েছে। দেয়া হয়নি পানির ট্যাংকি ও বেসিন। ফোরের কাজ করা হয়েছে কোনোমতে দায়সারাগোচের। এতে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।
স্থানীয় লোকজন জানায়, টিন শেড ও বাশের বেড়া দিয়ে নির্মিত এক সময়কার এ দাতব্য চিকিৎসালয়টি এখন লাকসাম উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্র নামে পরিচিত। এ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা হয়। প্রতিদিন অন্ততঃ শতাধিক রোগী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে এখানে চিকিৎসা নিতে আসে। এদের অধিকাংশই হতদরিদ্র নারী ও শিশু। কিন্তু এ উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রটি লাকসাম শহরের কেন্দ্রস্থলে হলেও আজো তাতে আধুনিকতার ছোঁয়া লাগেনি। আধুনিক স্থাপনা, সীমানা প্রাচীর কিছুই নেই। যে কোন সময় বেহাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে শত কোটি টাকা মূল্যমানের অরক্ষিত বিশাল সম্পত্তি।
কুমিল্লা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উপসহকারি প্রকৌশলী (স্বাস্থ্য) মোহাম্মদ রনি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তিনি বলেন, উপরোক্ত সমস্যার বিষয়ে ঠিকাদারের সাথে আলাপ হয়েছে। পূনঃরায় কাজ না করলে জামানত থেকে কর্তন করা হবে।
লাকসাম উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উপসহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হেদায়েত বেগম জানান, বৃষ্টির পানি রুমের ভেতরে ঢুকে ওষুধ, নথিপত্র, আসবাবপত্র ভিজে গেছে। রোগী দেখা সম্ভব হচ্ছে না।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নিশাত সুলতানা জানান, সংস্কার কাজ শেষে গত ৩রা জুলাই লাকসাম উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি আমাকে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু চৌচালা ভেঙ্গে একচালা টিনশেড দেয়ায় এবং পানির ট্যাংকি ও বেসিন না দেয়াসহ চাল দিয়ে ভেতরে পানি পড়ার বিষয়ে আপত্তি জানালে ঠিকাদার পূণঃরায় কাজ করে দেয়ার আশ্বাস দেয়। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিতভাবে জানানো হবে।
এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কলি এন্টারপ্রাইজের পরিচালক শাহাবুদ্দিন ভুঁইয়া জানান, ইঞ্জিনিয়ারের স্টিমিট অনুযায়ীই সকল কাজ করেছি। চাল দিয়ে পানি পড়ার খবর পেয়ে মিস্ত্রি পাঠিয়েছি ঠিক করার জন্য।








© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};