ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
213
মুরাদনগরে ছেলে ধরা সন্দেহে উত্তেজিত জনতার হামলায় ৩ পুলিশসহ আহত ৪
Published : Friday, 12 July, 2019 at 12:00 AM
মো. হাবিবুর রহমান :
সন্দেহাতীত ছেলে ধরাকে ছাড়িয়ে নিতে উত্তেজিত জনতার হামলায় ৩ পুলিশসহ ৪ জন আহত হয়েছে। ওই সময় বিক্ষুব্ধ জনতার ইট পাটকেল নিক্ষেপে ওসির গাড়ী ভাংচুর করেছে। বর্তমানে ওই এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বৃহস্পতিবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০টায় মুরাদনগর উপজেলার ছালিয়াকান্দি হাইস্কুল মাঠে এ ঘটনা ঘটে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কুমিল্লা সদরের দুর্গাপুর সংলগ্ন রংপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মতিনের ছেলে রবিউল আউয়াল (৩৭) তার বন্ধুর সাথে দেখা করার জন্য বৃহস্পতিবার সিএনজি চালিত অটো রিকশা যোগে মুরাদনগর উপজেলার বাখরাবাদ গ্যাস ফিল্ডে যাচ্ছিল। সকাল অনুমান সাড়ে ১০টায় ছালিয়াকান্দি নামক স্থানে সিএনজি দাড় করিয়ে রাস্তার পাশে পশ্রাব করতে বসে। এ সময় এলাকার কয়েকজন তাকে ছেলে ধরা সন্দেহে আটক করে। অবস্থা বেগতিক দেখে চালক সিএনজি নিয়ে পালিয়ে যায়। তখন সন্দেহাতীত ছেলে ধরা রবিউল আউয়ালকে ছালিয়াকান্দি হাইস্কুলে নিয়ে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে আটকে রাখে। খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শত শত জনতা স্কুল মাঠে এসে ভীর করে। এর মধ্যে উত্তেজিত জনতা তাকে বের করে দেওয়ার জন্য স্কুলের দরজা-জানালা ভাংচুর ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে এবং তাকে রক্ষা করতে থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে থানার ওসি এ.কে.এম মনজুর আলমের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে উত্তেজিত জনতা আরো বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এ সময় মাইক যোগে ওসি উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। পরে সন্দেহাতীত ছেলে ধরা রবিউল আউয়ালকে উদ্ধারপূর্বক থানায় নিয়ে আসার সময় উত্তেজিত জনতা ইট-পাটকেল নিক্ষেপে পুলিশের ওসির গাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় ৩ পুলিশ ও সন্দেহাতীত ছেলে ধরা রবিউল আউয়ালসহ চারজন আহত হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- আমির হোসেন, আবু রায়হান ও এনায়েত হোসাইন। তাদেরকে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
ছালিয়াকান্দি ইন্দ্রভূষন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গুরুদাস পাল দৈনিক কুমিল্লার কাগজকে জানান, রবিউল আউয়ালকে স্কুলে এনে নিরাপত্তা না দিলে বিক্ষুব্ধ জনতা হয়তো তাকে মেরেই ফেলতো। অবস্থা খারাপ দেখে আমি পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ সঠিক সময়ে না আসলে আরো বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতো।
মুরাদনগর থানার ওসি এ.কে.এম মনজুর আলম ঘটনার সত্যতা শিকার করে দৈনিক কুমিল্লার কাগজকে জানান, উক্ত ঘটনায় এসআই রিপন কুমার দাস ও আহত রবিউল আউয়াল বাদী হয়ে দু’টি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোন কারণ আছে কিনা সে বিষয়টি আমরা গভীর ভাবে খতিয়ে দেখছি।  









© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};