ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
215
ক্লাব গুলোতে  কেউ ছিল না
Published : Monday, 23 September, 2019 at 12:00 AM
বিডিনিউজ: মোহামেডানসহ মতিঝিলের চারটি কাবে পুলিশের অভিযানে ক্যাসিনো মিললেও কোনো জুয়াড়ীকে পাওয়া যায়নি। চার দিন আগে পাশের দুটি কাবে র‌্যাবের অভিযানের পর থেকে এই কাবগুলোতে আসর বসছিল না বলে স্থানীয়দের ভাষ্য।
কাবকেন্দ্রিক জুয়ার আখড়া বন্ধে গত ১৮ সেপ্টেম্বর র‌্যাব মতিঝিলের ফকিরাপুল ইয়ংমেন্স ও ওয়ান্ডারার্স কাবে অভিযান চালিয়েছিল। ওই অভিযানে কাবগুলোতে অবৈধ ক্যাসিনো থাকার বিষয়টি প্রকাশ পায়।
প্রথম দিনের অভিযানে দুই কাবের ক্যাসিনো থেকে দেড় শতাধিক জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ইয়ংমেন্স কাবের সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকেও তার গুলশানের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।
তারপর আরও কয়েকটি কাবে অভিযান চালায় র‌্যাব। রোববার মতিঝিলের কাবে হানা দেওয়ার মধ্য দিয়ে এই অভিযানে নাম লেখায় পুলিশও।
এদিন দুপুরের পর মোহামেডান ছাড়াও ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং কাব, দিলকুশা স্পোর্টিং কাব ও আরামবাগ ক্রীড়া সংঘে চলে অভিযান। অফিস পাড়া মতিঝিল এই ক্রীড়া কাবগুলোকে কেন্দ্র করে রাতে জমজমাট থাকলেও এই অভিযান শুরুর পর গত কয়েকদিন ধরে সুনসান ছিল বলে স্থানীয় বাসিন্দা ও দোকানিরা জানান।
জুয়ার আসরকে কেন্দ্র করে রাস্তা ও ফুটপাতে গড়ে ওঠা চা ও খাবারের দোকানগুলোতে কলসি ভরে পানি সরবরাহকারী আলেয়া বেগম নামে মধ্যবয়সী এক নারীর কথায় জানা যায় কাবগুলোতে কারও না থাকার কথা। পুলিশ দিলকুশা, আরামবাগ কাবে অভিযান চালিয়ে যখন ভিক্টোরিয়া কাবের দিকে যাচ্ছিল, তখন তিনি বলে ওঠেন, “কাবে তো কেউ নাই, পুলিশ কাউকে পাইব না।”
জানতে চাইলে আলেয়া বলেন, “স্যার, আজ ক’দিন ধরে কাবগুলোতে কেউ নাই।”
আসর না বসায় সেখানকার দোকানিদের কথায়ও ছিল হতাশার সুর।
শান্তা বিরানি হাউজের মালিক মিজানুর রহমান বলেন, “ব্যবসা ভালো যাচ্ছে না। রাতে খরিদ্দার পাওয়া যাচ্ছে না।”
সাদ্দাম স্টোর, মায়ের দোয়া রেস্টুরেন্টসহ অন্যান্য দোকানের কর্মীরাও বলেন, গত বুধবার থেকে রাতে কাবগুলোতে আর কেউ আসছেন না। চারটি কাবে গিয়ে দেখা যায়, রান্না ঘরে পড়ে থাকা খাবার পচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।
ডিএমপির মতিঝিল জোনের সহকারী কমিশনার মিশু বিশ্বাস বলেন, কার্যত গত বুধবার থেকে কাবগুলোতে লোকজন আসা-যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে, আর কর্মীরাও গা ঢাকা দিয়েছে।
প্রথম দিনের অভিযানে শুধু ইয়ংমেন্স কাবেই কর্মীসহ ১৪২ জনকে আটক করেছিল র‌্যাব। সেদিনের অভিযানে আটক মোট ১৮২ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়ে দিয়েছিল র‌্যাব।
তারপর থেকে মতিঝিলের কাবগুলোতে আনাগোনা কমে যায়; যদিও চারটি কাবেই রুলেট, বোর্ড, চিপস, তাসসহ জুয়ায় নানা উপকরণ পাওয়া গেছে।
পুলিশের নাকের ডগায় কীভাবে এসব ক্যাসিনো এতদিন চলছিল- প্রশ্ন করা হলে মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার আনোয়ার হোসেন বলেন, “যখনই আমাদের কাছে তথ্য এসেছে, তখনই আমরা অভিযান চালিয়েছি।”
এর আগেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জুয়ার আখড়া বন্ধে অভিযান চালিয়েছিল বলে দাবি করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা; তবে তাতে যে কোনো ফল আসেনি, তা এবারের অভিযানেই স্পষ্ট।
মতিঝিল এলাকায় ১২টি কাব রয়েছে; তবে অন্য কয়েকটিতে জুয়ার আলামত না পাওয়ার কথা জানিয়েছেন মতিঝিল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, “অন্য কাবগুলোতে খোঁজ নিয়েছি, কিন্তু তেমন কিছু পাওয়া যায়নি।”
ওয়ারী কাবের কর্মচারী সঞ্জিত চন্দ্র মজুমদার বলেন, “আমাদের কাবে ক্যাসিনো চলে না। কাবের সামনের মাঠের জায়গায় গাড়ি রাখার জন্য ভাড়া দেওয়া হয়। আর দাতারা যে টাকা দেয়, তা দিয়ে কাব চলে।”
অভিযান চালিয়ে যেসব কাবে ক্যাসিনো পাওয়া গেছে, সেগুলো ক্রীড়া কাব হিসেবেই পরিচিত।
প্রথম দিন চারটি কাবে অভিযান চালানোর পর র‌্যাবের নির্বাহী হাকিম সারোয়ার আলম বলেছিলেন, “নামে কাব হলেও এগুলোতে কোনো ক্রীড়া সামগ্রী বা কোনো খেলোয়াড়কে দেখা যায়নি। বিভিন্ন কক্ষজুড়ে ছিল ক্যাসিনোর বোর্ড, ডার্ট বোর্ডসহ জুয়ার সামগ্রী এবং জুয়াড়ি। ছিল মদ, বিয়ারসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক।”








© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};