ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
483
কুমিল্লায় তুলির আঁচড়ে ফুটে উঠছে প্রতীমার মুখ
Published : Tuesday, 1 October, 2019 at 12:00 AM, Update: 01.10.2019 1:23:30 AM
কুমিল্লায় তুলির আঁচড়ে ফুটে উঠছে প্রতীমার মুখরণবীর ঘোষ কিংকর: সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজাকে সামনে রেখে মন্ডপে মন্ডপে চলছে ব্যপক প্রস্তুতি। আর প্রতিটি পূজা মন্ডপের অন্যতম আকর্ষণ হলো দেবী দুর্গার সাকার রূপে প্রতীমা স্থাপন।
কাঠ-খড় ও মাটিতে তৈরি মুর্তি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আরধনার সূচনা পর্ব। মূর্তি হলো যার আরাধনা করা হয় তার মুর্ত প্রকাশ।
স্বামী বিবেকানন্দ সাকার রূপের উপলব্ধি করে বলেছিলেন, “পুতুল পূজা করে না হিন্দু/ কাঠ-মাটি দিয়ে গড়া, মৃন্ময়ী মাঝে চিন্ময়ী হেরে, হয়ে যায় আত্মহারা।”
এ চিন্ময়ী রূপই মা দুর্গার চিরকল্যাণী রূপ। যা জগতের সকলের চিরকাঙ্খিত মাতৃরূপ। এখানেই শারদীয় দুর্গোৎসবের সর্বজনীনতা ও সাফল্য।
আর সাফল্য অর্জনের চেষ্টায় কুমিল্লার প্রতিটি পূজা মন্ডপে প্রতীমাকে স্বরূপে ফিরিয়ে আনতে চলছে শেষ মুহুর্তের রং তুলির কাজ। শিল্পীদের নিপুন হাতে তুলির আলতো ছোয়ায় মুর্তি তৈরি কাজ সম্পন্ন করতে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে শিল্পীরা।
অনেক শিল্পী মন্ডপে মন্ডপে গিয়ে কাজ করছে আবার কোন কোন শিল্পী তাদের কারখানায় কাজ করছে। আগামী ২/১ দিনের মধ্যে পৌঁছে যাবে প্রতিটি পূজা মন্ডপের প্রতীমা।
সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার বরকামতা গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, প্রধান কারিগড় রবীন্দ্র পাল তার ৭-৮জন কর্মচারী নিয়ে প্রতীমার রং ও তুলির আঁচর দিতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন।
আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় টিনের ছাপড়া দেওয়া বিশাল ঘরের মধ্যেই কেউ প্রতীমায় রং দিচ্ছে, আবারও কেউ বা তুলির আঁচড়ে প্রতীমাকে স্বরূপে ফিরিয়ে আনছেন।
এ বছর তিনি ২৫টি মন্ডপের প্রতীমা তৈরির কাজ নিয়েছে। প্রতিটি প্রতীমা সর্বোচ্চ ৭০ হাজার সর্বনি¤œ ৩০ হাজার টাকায় অর্ডার নিয়েছেন। কেউ এক তৃতীয়াংশ বায়না করেছেন আবার কেউ বা অর্ধেক।
তিনি আরও বলেন, প্রতিমা তৈরিতে সরঞ্জাম খড়, সুতা ছাড়াও রং এবং অন্যান্য উপকরণের দাম রেড়েছে। এতে প্রতিমা তৈরিতে তাদের খরচ আগের তুলনায় অনেক বেশি হচ্ছে।
আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আগামী ২/১ দিনের মধ্যে সবগুলো মন্ডপে প্রতীমা পৌঁছাতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
এবার কুমিল্লা মহানগরী সহ ১৭টি উপজেলায় ৮০৯টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব। এর মধ্যে মহানগরীতে পূজা মন্ডপ ৭৩টি। জেলার মুরাদনগর উপজেলা ১৫৬টি, দেবিদ্বার উপজেলায় ৯১টি, বরুড়া উপজেলায় ৮৬টি, চান্দিনা উপজেলায় ৭৪টি, দাউদকান্দি উপজেলায় ৫৫টি, হোমনা উপজেলায় ৪৭টি, বুড়িচং উপজেলায় ৩৯টি, লাকসাম উপজেলায় ৩৪টি, সদর দক্ষিণ উপজেলায় ৩০টি, আদর্শ সদর উপজেলায় ২৬টি, চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় ২৩টি, মনোহরগঞ্জে ১৭টি, লালমাই উপজেলায় ১৫টি, তিতাস উপজেলায় ১৫টি, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলায় ১৪টি, নাঙ্গলকোট উপজেলায় ৮টি এবং মেঘনা উপজেলায় ৬টি পূজা মন্ডপ।







সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};