ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
729
সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তিচ্ছুদের উপচেপড়া চাপ
আসন সংখ্যা সীমিত হওয়ায় হিমশিম খেতে হয় কর্তৃপক্ষকে ---
Published : Wednesday, 20 November, 2019 at 12:00 AM, Update: 20.11.2019 2:12:27 AM

সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তিচ্ছুদের উপচেপড়া চাপআবুল কালাম আজাদ: সব বাবা-মায়েরই আশা থাকে, ছেলে-মেয়েগুলো বড় হয়ে কেউ ডাক্তর হবে বা ইঞ্জিনিয়ার হবে। এমন আশা থাকে প্রায় ৮০% বেশি অভিভাবকেরই। কিন্তু এই আশা বাস্তবায়নে থাকে নানা প্রতিবন্ধকতা, সবগুলো প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করতে পারলেই হতে পারছেন ডাক্তার বা প্রকৌশলী। এমনি একটি স্বপ্নপূরণের প্রতিষ্ঠানের নাম হচ্ছে সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজ। আগের সময়ে যে কেউ (এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে উত্তীর্ণ হতে পারলেই) প্রাইভেট মেডিকেলে ভর্তি হতে পারতেন। কিন্তু বর্তমান সরকার মেধাবীদেরকে এই সেক্টরে সুযোগ করে দেওয়ার উদ্দেশ্যে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে সারা দেশের সবকয়টি সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে উত্তীর্ণদের তালিকা প্রকাশ করে। এর  বাহিরে কেউ এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি হতে পারছেন না। ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠা লাভ করার পর অত্যন্ত সফলতার সাথে একাডেমিক কার্য্যক্রম পরিচালনা করে আসছে সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজ। ২০১৯ সনে কলেজটির ৯ জন চিকিৎসক বিসিএসে উত্তীর্ণ এবং ৮ জন চিকিৎসক পোস্ট গ্র্যাজুয়েশনে উত্তীর্ণ হয়ে দেশে খ্যাতিমান প্রতিষ্ঠান গুলো থেকে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পাওয়ায় ২০১৯-২০ সেশনে এমবিবিএস কোর্সে কলেজটিতে ভর্তি হওয়ার জন্য ভর্তি তথ্য কেন্দ্রে ভর্তিচ্ছুকদের উপচেপড়া চাপ নিয়মিত পরিলক্ষিত হচ্ছে। তবে আসন সংখ্যা ৭৫ নির্ধারিত থাকায় ভর্তিচ্ছুকদের মাঝে হতাশা কাজ করছে। কেউ কেউ আবার ভর্তি হওয়ার জন্য এখনি শুরু করেছেন বিভিন্ন মাধ্যমে তদবির। গত ১৩ই নভেম্বর থেকে শুরু হয় ভর্তি ফরম সংগ্রহ ও জমা দেয়ার কাজ। চলবে ২৪শে নভেম্বর পর্যন্ত। ভর্তি তথ্য কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করছেন কলেজের এডমিন অফিসার মোঃ ওমর ফারুক। এ বিষয়ে সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক (ডাঃ) মোঃ সফিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, সেন্ট্রাল মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার পর থেকে পড়ালেখার মানকে গুরুত্ব দিয়ে একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। পরিচালনা পর্ষদের নিবিড় পর্যবেক্ষণ, শিক্ষকদের নিরলস পরিশ্রম এবং শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পড়ালেখার ফলাফলই হচ্ছে ২০১৯ সালে আমাদের কলেজের ৯ জন চিকিৎসক বিসিএসে উত্তীর্ণ এবং ৮ জন চিকিৎসক পোস্ট গ্র্যাজুয়েশনে উত্তীর্ণ। আমাদের আসন সংখ্যা সীমিত হওয়ায় প্রতিবছরই হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে এ বছর ভর্তিচ্ছুকদের চাপ দেখে মনে হচ্ছে সামলানোটা অনেক কষ্ট হবে। আমরা চেষ্টা করছি যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে আসন বৃদ্ধি করার জন্য। কেননা আমাদের ৭৫টি আসনের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা, ফরেনার, প্রতিবন্ধী, উপজাতিসহ সরকার নির্ধারিত বিভিন্ন কোটাধারীদেরকে অগ্রাধিকার দিতে হয়। বর্তমানে যারা ভর্তি ফরম সংগ্রহ করেছেন ইনশাআল্লাহ্ আমরা ভর্তি পরীক্ষার ঘোষিত ফলাফলের মেধা তালিকা অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম পরিচালনা করবো। তিনি প্রতিষ্ঠানটির সফলতা অব্যাহত রাখার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
 







© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};