ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
71
কুমিল্লায় বঙ্গবন্ধু
Published : Tuesday, 14 January, 2020 at 12:00 AM
কুমিল্লায় বঙ্গবন্ধুআবুল কাশেম হৃদয় ।  । 
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান (১৯২০-১৯৭৫) শেষবার ১৯৭৫ সালের ১১ জানুয়ারি কুমিল্লায় এলেও প্রথম কবে কুমিল্লায় এসেছিলেন তা সুনির্দিষ্টভাবে জানা যায়নি। ১৯৪৯ সালে তৎকালীন ত্রিপুরার (কুমিল্লা) নবীনগরের কৃষ্ণনগর হাইস্কুলের দ্বারোদঘাটন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সভায় ছাত্রনেতা হিসেবে বক্তব্য রাখতে এবং ১৯৫১ সালে কুমিল্লা শহরের দারোগাবাড়িতে বঙ্গবন্ধু প্রথম এসেছিলেন বলে জানা যায়। ১৯৪৯ সালে কৃষ্ণনগরে আসার বিষয়ে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’তে সবিস্তারে উল্লেখ থাকলেও দারোগাবাড়িতে আসার বিষয়ে প্রমাণ পাওয়া যায়নি। ১৯৫২ সালের ৮ ডিসেম্বর পূর্ব পাকিস্তানের বিভিন্নস্থানে সফররত আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথম কুমিল্লা টাউন হলে ত্রিপুরা জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জনসভায় বক্তব্য রাখেন। বিপ্লবী আলী তাহের মজুমদারের মতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কুমিল্লা শহরের কান্দিরপাড়ে আনন্দভবনে হোটেল আরামবাগের উপর স্থাপিত ছাত্রলীগ কার্যালয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়।  বর্তমান কুমিল্লায় প্রথম কবে জাতির জনক এসেছেন তার নির্দিষ্ট দিন তারিখের তথ্য প্রমাণ না থাকলেও কুমিল্লার সাথে তাঁর যে নিবিড় সম্পর্ক ছিল তার ব্যাপক ও যথার্থ প্রমাণ পাওয়া যায়।
বঙ্গবন্ধু তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কুমিল্লায় পনেরটির বেশি বিশাল জনসভায় বক্তব্য দিয়েছেন। জীবনের একেবারে শেষ দিকে সাত মাস আগে কুমিল্লা সেনানিবাসে বাংলাদেশ সামরিক একাডেমির প্রথম ব্যাচের প্রশিণ শেষে সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। যুক্তফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে পাকিস্তান গণ পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার ৪৪ দিন আগে পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ১৯৫৫ সালের ১৮ এপ্রিল কুমিল্লার লাকসামে এক জনসভায় বক্তৃতা করেন। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনের হাঙ্গামার মামলা থেকে অব্যাহতি পাওয়ার ১০ দিন পর এই জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। যদিও তাঁর জীবদ্দশায় ১৯৫৭ সালের ৯ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা টাউন হল মাঠে তিনি প্রথম বিশাল জনসভায় বক্তব্য রাখেন বলে প্রমাণ পাওয়া যায়। ১৯৫৫ সালের ২১ অক্টোবর পুনরায় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর সেবারই তিনি প্রথম কুমিল্লায় আসেন। আওয়ামীলীগ আয়োজিত ঐ জনসভাটি ছিল সে সময়ে স্মরণকালের মধ্যে সবচেয়ে বড় জনসভা। আর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কুমিল্লায় প্রথম ও শেষ বিশাল জনসমুদ্রে বক্তব্য রাখেন ১৯৭২ সালের ৪ জুলাই। শহরে স্থান সংকুলান হবে না বলে জনসভাটি আয়োজন করা হয় কুমিল্লা শহরতলীর বিশাল খোলা মাঠ হাউজিং এস্টেট এলাকায় কেটিসিসিএ লিমিটেডের সামনে। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেইসকোর্সের জনসভার পর এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম জনসমুদ্র বলে কুমিল্লায় কথিত রয়েছে। প্রথম ও শেষ এই দুইটি বড় জনসভা ছাড়াও বঙ্গবন্ধু কুমিল্লা টাউন হল মাঠে আরো ছয়টি বিশাল জনসভায় বক্তব্য রাখেন, এর মধ্যে ১৯৬৬ সালের ২৯ এপ্রিল ৬ দফার পক্ষে জনসভা ও ১৯৭০ সালের ২৩ জানুয়ারির জনসভার কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করার দাবি রাখে। স্বাধীনতার পর কুমিল্লা সেনানিবাসে সামরিক একাডেমির প্রথম ব্যাচের প্রশিণের উদ্বোধন ও সমাপনী অনুষ্ঠান ও কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সের প্যারেডে অংশ নেয়া ছাড়াও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কুমিল্লায় শতাধিক ছোট বড় জনসভা, অগণিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন। ১৯৬৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা প্রত্যাহার করে মুক্তি দেয়ার পর কুমিল্লা সফরকালে তাঁর অনেকগুলো পথসভা জনসভায় রূপ নেয়। পাকিস্তানের লাহোরে ৫ ফেব্রুয়ারি বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক ছয় দফা দাবি পেশ করার পর চট্টগ্রামে ঐতিহাসিক ছয় দফার জনসভার পর ঢাকা যাওয়ার পথে কুমিল্লার চৌয়ারাতে প্রথম ছয়দফার পক্ষে প্রচারণার অংশ হিসেবে পথসভায় বক্তব্য রাখেন। পথসভাটিতে এতো বিপুল সংখ্যক মানুষের সমাগম ঘটে যে তা জনসভায় রূপ নেয়।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কুমিল্লায় সব মিলিয়ে কতবার এসেছেন তার পরিসংখ্যান দেয়াও কঠিন এবং অসম্ভব। কেননা ঢাকা থেকে সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম অঞ্চলে আসা যাওয়ার পথে প্রায়ই তিনি কুমিল্লায় অবস্থান করতেন। বিশেষ করে ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে সে সময় তিনটি ফেরি থাকায় এবং রাত ১০টার পর ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ার সময় হলে তিনি কুমিল্লায় থেকে যেতেন। যদি তথ্য প্রমাণ দিয়ে বলতে হয় তাহলে বলা যায় অন্তত ৩৬ বার বঙ্গবন্ধু কুমিল্লায় এসেছিলেন। কত দিন ছিলেন সেটিও বলা মুশকিল। তবে সবচেয়ে বেশি দিন ছিলেন ১৯৫৮ সালের জানুয়ারি মাসে। সে সময় সর্বকনিষ্ঠ মন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কোয়ালিশন সরকারের শিল্প, বাণিজ্য ও শ্রম, কৃষি শিল্পোন্নয়ন, সমাজ কল্যাণ, পল্লী উন্নয়ন পরিকল্পনা ও দুর্নীতি দমন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করার পর প্রেস্টিজ ইস্যু হয়ে দেখা দেয়ায় ত্রিপুরা তথা কুমিল্লার বুড়িচংয়ে উপ-নির্বাচন। এ নির্বাচনে ন্যাপের প্রার্থীকে পরাজিত করার পাশাপাশি আওয়ামীলীগের প্রার্থীকে বিজয়ী করার ধ্যানজ্ঞানে নিবেদিত হন তিনি। কারণ ১৯৫৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি কাগমারিতে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামীলীগের সম্মেলনের পর মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী আওয়ামীলীগ থেকে বেরিয়ে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি ন্যাপ গঠন করলে কুমিল্লার বুড়িচংয়ের বেশিরভাগ আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী ন্যাপে যোগ দেন। সে কারণে বঙ্গবন্ধু  ১৯৫৮ সালের ৮ ও ২২ জানুয়ারি কুমিল্লায় আসেন। ৩০ জানুয়ারি উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, ফল ঘোষণা হয় ৫ ফেব্রুয়ারি। বঙ্গবন্ধুকে সে সময় বুড়িচংয়ে বেশি দিন অবস্থান করতে হয়েছিল। সে সময় বিশাল ব্যবধানে আওয়ামীলীগের প্রার্থী আমীর হোসেন বিজয়ী হন। আওয়ামীলীগের প্রধান শহীদ সোহরাওয়ার্দী, পূর্ব পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী আতাউর রহমান খানও সে প্রচারে অংশ নিয়েছিলেন। আর ন্যাপ প্রার্থী অধ্যাপক মফিজুল ইসলামের পক্ষে ন্যাপ নেতা মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী প্রচারে অংশ নেন। জাতীয় রাজনীতিতে এ নির্বাচন ছিল সবচেয়ে বেশি আলোচিত।
বঙ্গবন্ধু বেশিরভাগ সময় উঠতেন কুমিল্লা শহরের রেইসকোর্সে ত্রিপুরা জেলা আওয়ামীলীগের তৎকালীন যুগ্মআহবায়ক ও পরে কুমিল্লা জেলা আওয়ামীলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আহমেদ আলীর গফুর ম্যানসনের বাসায়। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক তখন কুমিল্লা শহরের উপর দিয়েছিল। রাত্রি যাপনকালে তিনি কুমিল্লা পৌরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান বিপ্লবী অতীন্দ্র মোহন রায় এবং ভাষা সংগ্রামের রূপকার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের সাথে সময় কাটাতেন। খাওয়া দাওয়ার সময় টাকি মাছের ভর্তা বেশি পছন্দ করতেন। টাকি মাছ না পাওয়া গেলে কৈ মাছ  ভেজে দেয়া হতো বঙ্গবন্ধুকে। এ প্রসঙ্গে প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাডভোকেট আহমদ আলী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কতবার এসেছেন তার কোন সঠিক হিসাব নাই। রাখা সম্ভবও হয় নি।’

[চলবে]





সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};