ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
271
গাছের বুকে পেরেক ঠুকছেন শিক্ষকরাও!
Published : Wednesday, 29 January, 2020 at 12:00 AM, Update: 29.01.2020 1:49:06 AM
গাছের বুকে পেরেক ঠুকছেন শিক্ষকরাও! তানভীর দিপু:
বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের বিজ্ঞাপন প্রচারের সহজ মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছেন গাছ। লেমেনেটিং পেপারে মোড়ানো কাগজে লেখা পোষ্টার- পড়ানো হয়, বাসা ভাড়া, মেস মেম্বার আবশ্যক, কোচিং সেন্টারে ভর্তি ইত্যাদি শিরোনামে এসব বিজ্ঞাপন পেরেক ঠুকে লাগোনো হয় গাছে। কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন স্কুল কলেজের সামনে, পার্কে অথবা রাস্তার পাশের ছোট বড় গাছ গুলোতে সচরাচরই দেখা যাচ্ছে এমন নিষ্ঠুর কাজের চিত্র। বিশেষ করে যখন কতিপয় শিক্ষকদের “পড়নো হয়” বিজ্ঞাপন এমন নিষ্ঠুরতা অবলম্বনে হয়-তা মনে নেয়াটা খুবই কষ্টকর বলে মনে করছেন পরিবেশবিদরা।
গাছে পেরেক ঠুকে সবচেয়ে বেশি বিজ্ঞাপন প্রচার করছেন কতিপয় শিক্ষক। শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট টিউশনে আকর্ষণ করতে কুমিল্লার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনের গাছপালাতে ইচ্ছেমত এই কাজ করছেন তারা। একদিকে কাজটি যেমন নিষ্ঠুরতা অন্যদিকে পরিবেশ বিরোধী। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শাখার সামনে রানীর দিঘীর পাড়ে ঘুরে দেখা গেছে এক একটি গাছে অন্তত এমন তিনটি করে বিজ্ঞাপন পেরেক ঠুকে লাগানো আছে। দিঘীর পূর্ব পাড়ে প্রাপ্তবয়স্ক খুব কম গাছই বাদ পড়েছে- যাদের গায়ে পেরেক ঠোকা হয়নি। এমন বিজ্ঞাপন লাগানো মৃত গাছও চোঁখে পরেছে এই এলাকায়। নতুন করে লাগানো ছোট ছোট গাছেও দড়ি বা সুতলি দিয়ে বেঁেধ বিজ্ঞাপন প্রচার করছেন অনেকে।
“জীববিজ্ঞান পাড়ানো হয়” বিজ্ঞাপনদাতা এক প্রতিষ্ঠানের প্রধান জানান, আমরা তৃতীয় পক্ষকে এসব বিজ্ঞাপনী কাজ দেই। তাদেরকে বলাও হয় যেন কোন কিছুর ক্ষতি করে পোষ্টার লাগানো না হয়। তারপরও তারা যদি করে থাকে আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি।  
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভিক্টোরিয়া কলেজের এক ছাত্র জানান, এসব বিজ্ঞাপন যে কখন লাগায় টেরই পাওয়া যায় না। এসব বিজ্ঞাপনের বেশির ভাগই শিক্ষকদের। কোচিং সেন্টার বা মেস মেম্বার আবশ্যক এমন বিজ্ঞাপন। শুধু গাছে পেরেক ঠুকে নয়, দড়ি দিয়েই তো এসব বিজ্ঞাপন লাগানো ঠিক নয়। শিক্ষকরা এমন আচরণ করলে স্বাভাবিক ভাবে ছাত্ররাও এমন করবে।   
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাহদি হাসান জানান, গাছের যে প্রাণ আছে, আঘাত পেলে তারাও কষ্ট পায়। যদি তারা কথা বলতে পারতো, তারাও হয়তো এই আঘতের প্রতিবাদ করতো। অথচ শিক্ষকদের বিজ্ঞাপনই বেশি গাছে  পেরেক ঠুকে লাগানো দেখি- তা আসলেই দুঃখজনক। এছাড়া এসব বিজ্ঞাপণ শিক্ষাঙ্গনের পরিবেশ ও নষ্ট করে। এরকম একটি নিষ্ঠুরতা অচিরেই বন্ধ হওয়া উচিত।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মেহেরুন্নেছা জানান, যারা গাছে পেরেক ঠুকে বিজ্ঞাপন লাগায় তারা নির্বোধ। যে গাছ আমাদের বেঁচে থাকার জন্য সবচেয়ে মূল্যবান অক্সিজেন দিচ্ছে আমরা সেটাকেই কষ্ট দিচ্ছি। এছাড়া একটা গাছে যদি তিনটি চারটি করে পেরেক লাগানো হয়, সেটি মরেও যেতে পারে। এমন নিষ্ঠুর কাজ আমাদের নিজ থেকেই বন্ধ করা উচিত।  
বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন(বাপা) কুমিল্লার সভাপতি ডা. মোসলেহ উদ্দিন জানান, গাছকে বিজ্ঞপনী কাজে ব্যবহার করা অনুচিত। পোষ্টার ব্যানরের জন্য শহরে আলাদা আলাদা পোষ্টার কর্নার থাকা উচিত যেখানে বিজ্ঞাপন লাগানো হবে। সে জায়গায় যদি নিষ্ঠুরতার প্রশ্রয় নিয়ে একাজ কেউ করে তা থাকে- এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নজর দেয়া উচিত।
গাছের যে প্রাণ আছে- তা উদ্ভাবন বিখ্যাত হয়েছিলন বাঙালি বিজ্ঞানী স্যার জগদীশচন্দ্র বসু। তিনি উপলব্ধি করেছেন যেহেতু গাছের জীবন আছে, সেক্ষেত্রে আঘাত পেলে গাছ কষ্টও পায়। এই ব্যাপারটি মাথায় রেখে গাছে পেরেক ঠোকা বন্ধ করতে সাধারন মানুষকেই আগে এগিয়ে আসতে হবে বলে মনে করেন বৃক্ষপ্রেমিকরা।








© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};