ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
111
একুশ বাঙ্গালীকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল
শ্যামল বড়–য়া ববি ||
Published : Wednesday, 12 February, 2020 at 12:00 AM, Update: 12.02.2020 2:48:24 AM

একুশ বাঙ্গালীকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল তিন নদী পরিষদের ২১ দিনের অনুষ্ঠানের ১১ তম দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মো. আবদুছ ছালাম বলেন, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র, উচ্চ, নীচের সব ভেদাভেদ ভুলিয়ে একুশ এক বাঙালী পরিচয়ে বাংলাদেশের সকল বাঙালীকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল এবং একাত্তরের স্বাধীনতার দিকে অনিবার্য ভাবে তাদের ঠেলে দিয়েছিল, শহীদ সালাম, জব্বর, রফিক এরা একেবারেই সাধারণ ঘরের সন্তান, শহীদ হওয়ার আগে তাঁদের নামটিও কেউ জানতো না, সাধারণ মানুষের আত্মদানের মধ্য দিয়েই ভাষা আন্দোলন গণআন্দোলনে রূপ নিয়েছিল।
বিষয় সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন মাহবুব বলেন, তিন নদী পরিষদের একুশে পদক প্রাপ্তির যে দাবী এই মঞ্চ থেকে উত্থাপিত হয়েছে নারী নেত্রী বেগম রোকেয়া পদক প্রাপ্ত পাপড়ী বসু কর্তৃক, তা অত্যন্ত যৌক্তিক, আরো আগেই এই সম্মাননা পাওয়া উচিৎ ছিল।
সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র, পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কাব্যের শুরুতে ভাষাসৈনিক অজিতগুহকে স্মরণ করেন, ইতিহাস যেন বিলুপ্ত না হয়, সাধারণ মানুষ যেন একুশের চেতনায় উজ্জীবিত ও অনুপ্রাণিত হয়। তার জন্য অনেক ত্যাগ তিতিক্ষার এই পরিষদ।
অজিতগুহ মহাবিদ্যালয়ের উপাধ্যক্ষ মোস্তাক আহমেদ বলেন, নৈতিক দায়িত্ব থেকে একুশের ইতিহাস সঠিকভাবে জনগণকে জানানোর এই মহৎ উদ্যোগ কে স্বাগত জানান, সফলতা কামনা করেন তিনি জীবিত কিংবদন্তী ভাষা সৈনিক আলী তাহের মজুমদার ও আবদুল গাফফার চৌধুরীকে স্মরণ করে বক্তব্য রাখেন, তিনি এই পরিষদকে পদক প্রাপ্তির ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগীতার আশ্বাস দেন।
অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে তিন নদী পরিষদের সভাপতি কুমিল্লা প্রেস কাবের সাবেক সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল আগত অতিথি, শিক্ষার্থী ও দর্শক শ্রোতাদেরকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আবেগ দিয়ে বলেন, পদক পেলে হয়তো এই সংগঠনটি বন্ধ হয়ে যাবে, যতোদিন বেঁচে থাকবেন এমন অনুষ্ঠান চালিয়ে যাবেন। তিনি অধ্যক্ষ হাসান ইমাম মজুমদার ফটিক সম্বন্ধে বলেন, তিনি প্রতি বছর এই মঞ্চে বক্তব্য রেখেছেন। কিন্তু আজ অসুস্থ শরীরে বক্তব্য না দিয়েও এখানে উপস্থিত থেকে সবাইকে কৃতার্থ করেছেন।
সাংস্কৃতিক পর্বে নীলিমা দত্ত এর পরিচালনায় ও সত্যজিত দাস এর তবলা সংগীত এর মাধ্যমে গান, নাচ, আবৃত্তিতে অংশ গ্রহণ করেন সাবরিনা ভূঞা, শ্রাবণী সরকার দোলন, তাসনিম বিনতে জামাল, হালিমাতুল ফাহিমা, জান্নাতুল ফেরদৌস নাদিয়া, মাকসুদা জাহান মেঘলা, উম্মে ছাবিহা প্রীতি, অনিক, সাগর দাস, শিহাব, আকিদুল, তাসনিম ও আলামিন।








© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};