ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
তবুও অনীহা মাস্ক ব্যবহারে!
Published : Thursday, 19 November, 2020 at 12:00 AM, Update: 19.11.2020 1:09:34 AM
তবুও অনীহা মাস্ক ব্যবহারে!জহির শান্ত ||
বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ ঠেকাতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ ব্যাপক সতর্কাবস্থা গ্রহণ করলেও সাধারণ মানুষের মাঝে তৈরি হয়নি সচেতনতা। মুখে মাস্ক ব্যবহার না করেই মানুষজন বাইরে ঘুরাফেরা করেন; সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা না করেই জটলা বেঁধে আড্ডা দিচ্ছেন। ভিড় করছেন যেখানে সেখানে। রাস্তাঘাট, শপিং কমপ্লেক্স থেকে শুরু করে গণপরিবহন- সর্বত্রই একই চিত্র। অসচেতনভাবে ঘুরছে স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করেই।
যদিও মানুষের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি ও মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে কুমিল্লায় মাঠে নেমেছে মোবাইল কোর্ট। জেলা সদর ছাড়াও উপজেলা পর্যায়েও চালানো হচ্ছে অভিযান, করা হচ্ছে জরিমানা ও মামলা। কিন্তু তারপরও সচেতন হচ্ছে না মানুষ। গত দুই দিনে কুমিল্লা শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বেশিরভাগ স্থানেই মাস্কহীন ঘুরাঘুরি ও আড্ডার চিত্রই চোখে পড়েছে। তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অনেকেই ভুলে বাসায় মাস্ক ফেলে এসেছেন; আবার অনেকে সব সময় মাস্ক সঙ্গে রাখেন- তবে কখনো ব্যবহার করেন, কখনো করেন না।
কিন্তু কেন এই মাস্কহীন ঘুরাফেরা?- কেউ জানান, মাস্ক পরলে হাঁসফাঁস লাগে। স্বাভাবিকভাবে নিঃশ্বাস নিতে পারেন না। আবার কেউ বলেন, মাস্ক সবসময় পকেটে রাখেন, কোথাও প্রশ্নের মুখে পড়লে যেন তাৎক্ষণিকভাবে পরে নিতে পারেন। গতকাল বিকেলে কুমিল্লার ধর্মসাগর পাড়ে মাস্কহীন আড্ডা দিতে থাকা ৫ যুবকের সঙ্গে কথা হলে এ প্রতিবেদককে তারা জানান, মাস্ক পরলে হাসফাঁস লাগে। তাই পকেটে রেখেছি; তবে রাস্তায় বের হলে পরে নেই। এ আড্ডারই আরেকজন যুবক মানিক। তিনি জানান, ভুলে বাসায় ফেলে এসেছেন; তবে অন্য সময় সাথেই রাখেন।
একদিন দুপুরে কান্দিরপাড় পূবালী চত্বরে ভির ঠেলে হেঁটে চলা পথচারীদের মুখেও দেখা গেলো মাস্ক নেই। রোদ মাড়িয়ে এক স্বজনকে সাথে নিয়ে থাকা যুবক আমির হোসেনের কাছে গিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মাস্ক পকেটে আছে। কখনো কখনো মুখে দেই। কিন্তু এখন দুপুরের যেই রোদ, মাস্ক পরতে অসহ্য লাগে।’ সে পথে হাঁটতে থাকা আরো অনেকেই একই ধরনের উত্তর দেন।
মাস্কে অনীহা কেন-এমন প্রশ্নের যৌক্তিক কোনো উত্তর পাওয়া গেল না তাঁদের কাছ থেকে। আর এতে করে কুমিল্লায় বেড়ে যাচ্ছে করোনার সংক্রমণ। সর্বশেষ গতকাল একদিকে কুমিল্লায় আরো ২৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত করা হয়। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৮,২৯০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৩১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭,৪১২ জন। গতকাল আক্রান্তদের মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকায় ১০ জন, দাউদকান্দি ৪ জন, দেবিদ্বার ৪ জন, হোমনা ৩ জন, আদর্শ সদর ২ জন, নাঙ্গলকোট ২ জন, মেঘনা ২ জন, লাকসাম ১ জন ও বরুড়া উপজেলায় ১ জন। গত একদিনে কুমিল্লায় সুস্থ হয়েছেন ১৩ জন। তাদের মধ্যে বরুড়া ১২ জন ও দেবিদ্বার উপজেলায় ১ জন।
এদিকে কুমিল্লায় করোনার দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ ঠেকাতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ ব্যাপক সতর্কাবস্থা গ্রহণ করেছে। মানুষকে সচেতন করতে নেয়া হচ্ছে নানা কর্মসূচি। সরকারি অফিসগুলোতে চালু করা হয়েছে ‘নো মাস্ক-নো এন্ট্রি’ ‘নো মাস্ক- নো সার্ভিস’ স্লোগান।
এ প্রসঙ্গে কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর জানান, করোনার দ্বিতীয় ধাক্কা প্রতিরোধে মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে এবং মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসনের মোবাইল টিম অভিযানে নেমেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল বুধবার ও তার আগেরদিন মঙ্গলবার জেলার বিভিন্নস্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। মানুষের মাঝে মাস্ক পরার অভ্যাস নিশ্চিত না করা পর্যন্ত জেলা প্রশাসন এই অভিযান অব্যাহত রাখবে বলে জানান জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর।
তারই প্রেক্ষিতে কুমিল্লার জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অভিযান চালিয়ে মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়া ব্যক্তিদের ধরে মামলা ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
গতকাল বুধবার ও তার আগের দিন মঙ্গলবার কুমিল্লার বিভিন্ন স্থানে জনসাধারণের মাঝে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অভিযান পরিচালনা করে মোবাইল কোর্ট। কুমিল্লা সদর উপজেলা, ব্রাহ্মণপাড়া ও চান্দিনায় অভিযান চালানো হয়।
এর মধ্যে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় এবং মুখে মাস্ক না পরায় প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল ১৮ নভেম্বর বুধবার সকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩১ জনকে ১১টি মামলায় বিভিন্ন অংকে ১০ হাজার ২শ টাকা অর্থদ- দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। উপজেলা সদর বাজার ও উপজেলার হরিমঙ্গল বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফৌজিয়া সিদ্দিকা।
অপরদিকে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় মাস্ক ব্যবহারসহ স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায়  কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিয়া আফরিন। মাস্ক পরিধান সহ স্বাস্থ্যবিধি না মানায়  দুই দিনে ২৩ মামলায় ৩৪ জনকে ৭ হাজার ৫০ টাকা  অর্থদন্ড করা হয়। অপরদিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দিনমজুর সহ বিভিন্ন অসচেতন অসহায়দের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।
এদিন বুধবার বিকেলে কুমিল্লার চান্দিনায় মাস্ক ছাড়া রাস্তায় চলাফেরার অভিযোগে ৮ পথচারীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেন। এর আগের দিন মঙ্গলবারও বাজারে অভিযান চালিয়ে মাস্ক ব্যবহার না করার অভিযোগে ১৬ জনকে ২ হাজার ৭শ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এছাড়াও মঙ্গলবার কুমিল্লার শাসনগাছা রেলস্টেশন, বাসস্টেশন, বাগিচাগাঁও ডায়াবেটিক হাসপাতাল ও কান্দিরপাড় ফৌজদারি মোড় এলাকায় পৃথক পৃথক অভিযান চালিয়ে মাস্ক না পরা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা ও অর্থদ- করা হয়। পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতের চারজন ম্যজিস্ট্রেট ২০টি মামলা, ৩৫ জনকে  অর্থদ- করে সর্বমোট ৮ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা করেছেন। এছাড়া ব্রাহ্মণপাড়া, চান্দিনা, লাকসামসহ কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়েও ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়েছে। এসময় বেশ কয়েকজনকে করা হয়েছে জরিমানা, দায়ের করা হয়েছে কয়েকটি মামলাও।
এদিকে মানুষের মাঝে মাস্ক ব্যবহারে অনীহা ও স্বাস্থ্য বিধি তোয়াক্কা না করা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কুমিল্লা জেলা করোনা প্রতিরোধ সমন্বয়ক ডা. নিসর্গ মেরাজ চৌধুরী বলেন, করোনাভাইরাস থেকে পরিত্রাণ পেতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিকল্প নেই। নিজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি অন্যদেরকে তা মেনে চলতে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। সকলের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি হলে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।
জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ৪৩,০৫৩টি। তার মধ্যে রিপোর্ট এসেছে ৪২,৭৫৯টি। এখনো রিপোর্ট প্রক্রিয়াধীন ২৯৪টি। প্রাপ্ত রিপোর্টে পজিটিভ ৮,২৯০ জন এবং নেগেটিভ ৩৪,৪৬৯টি। তাদের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৩১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭,৪১২ জন। এখনো হোম আইসলোশান ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৬৪৭ জন।   







© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};