ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
1788
আত্মহত্যা নয়, মনের যত্ন চাই
জহির শান্ত ||
Published : Saturday, 5 December, 2020 at 12:00 AM, Update: 05.12.2020 2:22:02 AM
আত্মহত্যা নয়, মনের যত্ন চাই*  কুমিল্লায় এখন ‘সুইসাইডাল ক্লাস্টার’ চলছে
* পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় ও সন্তান-অভিভাবক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের

মাত্র তিন দিন আগে একটি আত্মহত্যার ঘটনা শোকবিহ্বল করে তুলেছে কুমিল্লাবাসীকে। বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্রী জান্নাতুল হাসিন আগের দিন ঢাকায় বোনের বাসা থেকে কুমিল্লায় নিজের বাসায় ফিরে পরদিনই পাশের নির্মাণাধীন ৯তলা ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন বলে খবর মেলে। কী অভিমান, কী দুঃখ-হতাশা বা ক্ষোভ নিয়ে মেয়েটি বাড়ি আসেন, তা এখনো পরিষ্কার জানা যায়নি। হাসিনের সুন্দর মায়ামাখা মুখখানা কারো চোখ থেকে না মুছতেই গতকাল আরেকটি আত্মহত্যার ঘটনা একই রকম ধাক্কা দিল কুমিল্লাবাসীকে। এবার অনেক মানুষের প্রিয় গায়িকা উপমা ঢাকায় নিজ বাসায় বাড়িতে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানা গেল। কুমিল্লাসহ সারা দেশের প্রায় সমস্ত পত্রপত্রিকায় এখনো ডাগর চোখে তাকিয়ে আছে উপমার মায়াবী মুখটি; আর সেইসঙ্গে বিরাট একটি প্রশ্নবোধক চিহ্ন যেন ঝুলিয়ে রেখেছে লাখো মানুষের মনে- কেন? কেন এই আত্মহত্যা?? কী এমন কষ্টের আঁধারে সব আলো হারিয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিয়ে চলে যাওয়া চিরতরে???
তথ্যানুসন্ধান বলছে, কারণটা, সংকটটা প্রধানত পারিবারিক। এ ছাড়াও রয়েছে প্রেমঘটিত, মান-অপমান বোধের আতিশয্য। গত পাঁচ মাসের ঘটনাপ্রবাহ বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, কুমিল্লায় যতগুলো আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে এর বেশিরভাগই ঘটেছে পারিবারিক সংকটে; পারিবারিক অশান্তিতে; পারিবারিক অস্থিরতায়। গতকাল সঙ্গীতশিল্পী উপমার আত্মহননের ঘটনাও স্বামীর সঙ্গে ডিভোর্সের কারণে সৃষ্ট মানসিক জটিলতা থেকেই বলে জানা গেছে। আর তিন দিন আগে বিশ^বিদ্যালয়ছাত্রী হাসিনের আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে যতটুকু তথ্য মিলেছে, সেটাও প্রেমে ব্যর্থতার হতাশা থেকে।
আত্মহত্যার এ প্রবণতা শঙ্কিত ও ব্যথিত করে তুলেছে কুমিল্লার নানা শ্রেণি-পেশার মানুষকে। তারা বলেন, ‘নানা কারণে পরিবার, স্বজন কিংবা মনের মানুষের সাথে একটু দূরত্ব তৈরি হতেই পারে। কিন্তু অনেকেই আর সে দূরত্বটা ঘোচাতে পারেন না। তাদের কেউ কেউ আত্মহনের পথ বেছে নেন। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকা আত্মহত্যার প্রবণতা রুখতে সামাজিক সচেতনতার পাশাপাশি পারিবারিক বন্ধন আরো দৃঢ় করতে হবে। কেন না- দূরত্ব বাড়লেই বেড়ে যায় নিঃসঙ্গতা। একাকিত্ব তখন কুড়ে-কুড়ে খায়, বিপথগামিতা বাড়ায়।
কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের তথ্য মতে, ভিকটিম পরীক্ষার রেজিস্ট্রার্ড বইয়ে নির্দিষ্ট একটি সংখ্যা উল্লেখ থাকলেও প্রকৃত সংখ্যাটা অবশ্য অজানাই রয়ে যায়। কারণ, এদের অনেককেই সংশ্লিষ্ট থানা থেকে ‘অনাপত্তি’ নিয়ে ময়না তদন্ত ছাড়া দাফন করা হয়। আর অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে, চলতি বছরে ‘স্বেচ্ছামৃত্যুর’ মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশই ঘটেছে পারিবারিক আবহেই- কলহ, বাগ্বিত-া কিংবা অপমান-অভিমানে, যাদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু-কিশোর।
বিষয়টি নিয়ে আলোচনা তুললে কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিশেষজ্ঞ ডা. বেলায়েত হোসেন গত রাতে কুমিল্লার কাগজকে বলেন, একজন মানুষ আত্মহত্যার পথ বেছে নেন পারিবারিক কলহ, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে, মানুষিক নির্যাতন, যৌতুকসহ অনেকগুলো বিষয়কে কেন্দ্র করে। আত্মহত্যা করার আগে ওই ব্যক্তি তার সবচেয়ে নিকটব্যক্তির কাছে আত্মহত্যার বিষয়টির আভাস দিয়ে যান। ভালো লাগছে না; মারা যেতে ইচ্ছে করে; বাঁচার ইচ্ছে নাই- এই ধরনের কথাবার্তা বলে। আত্মহত্যা থেকে মুক্তির জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন যেটা, সেটা হলো- আমাদের সবাইকে মনের যত্ন নিবে হবে। পারিবারিকভাবে আচার-আচরণে পরিবর্তন আনতে হবে। নৈতিক শিক্ষার মূল্যবোধ বাড়াতে হবে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী সুস্থ থাকার জন্য পরিমাণ মতো ঘুমাতে হবে।
শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ও বিশিষ্ট শিশু সংগঠক ডা. ইকবাল আনোয়ার বলেন, ‘আত্মহত্যা কোনো সমাধান নয়; তারপরও হতাশা-বিষাদগ্রস্ততা থেকে অনেকেই এ পথে পা বাড়ায়। আত্মহত্যা এখন ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। গেলো ক’ বছর ধরেই বিষয়টা লক্ষ্য করছি। এক কথায় বলতে গেলে, কুমিল্লায় এখন ‘সুইসাইডাল ক্লাস্টার’ চলছে। একজনের দেখাদেখি অন্যজনে সংক্রমণের মতো আত্মহত্যার প্রবণতা বাড়ছে। এই বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দিয়ে বলেন, এসব প্রতিরোধে পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় করতে হবে; ছেলেমেয়েদের সঙ্গে অভিভাবকদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। পরিবারের হতাশাগ্রস্ত সদস্যদের বোঝাতে হবে- জীবনে দুঃখ-বেদনা থাকবে, ব্যর্থতা-অপূর্ণতা থাকবে; তারপরও নতুন উদ্যমে আগামীর লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে। দীর্ঘ ব্যর্থতার পর প্রাপ্ত সফলতাতেই আনন্দ বেশি। এর মাঝেই লুকিয়ে থাকে জীবনের চরমতম রোমাঞ্চ।’  
উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকা আত্মহত্যার এ প্রবণতায় শঙ্কিত কুমিল্লার নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। তাদের অনেকের ভাষ্য, ‘অস্থির এ সময়ে কলহ-দ্বন্দ্ব-বিত-ায় একজন অধ্যক্ষকেই যদি আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হয়, তবে এ ‘মিছিলে’ নারী-শিশুসহ সাধারণের তালিকা দীর্ঘ হওয়ার শঙ্কা তো থেকেই যায়।’ শঙ্কার বিষয়টির সাথে একমত পোষণ করে বিশিষ্ট ব্যক্তি বর্গরা বলছেন, গেলো বছর কুমিল্লা সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আবদুল ওহাব আত্মহত্যা করলেন। তিনি অত্যন্ত সহজ-সরল ও ধার্মিক মানুষ ছিলেন। তাঁর এমন মৃত্যু অচিন্ত্যনীয়। আলোর পথ দেখানো মানুষেরাই যদি আত্মহননে ‘মুক্তি’ খোঁজেন; বিষয়টা তখন পরিবার-সমাজের জন্য শঙ্কার হয়ে ওঠে।’

যে কারণে হাসিনের আত্মহত্যা-
হাসিনের আত্মহত্যার বিষয়ে খোঁজ নিতে গিয়ে একটি সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা মডার্ন স্কুলে পড়ার সময় এক বছরের সিনিয়র এক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে তার। দীর্ঘদিনের এ প্রেমে ফাটল ধরে কিছুদিন আগে। অন্য একজনকে বিয়ে করে ওই ছেলেটি। বিষয়টি কিছুতেই মেনে নিতে পারছিলেন না হাসিন। এর মধ্যে ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানে দেখা হয় হাসিন ও ওই যুবকের। পুরনো সম্পর্ক নিয়ে কথাও হয় তাদের মাঝে। এর পর সোমবার রাতে বাড়ি ফিরে মঙ্গলবার দুপুরে আত্মহননের পথ বেছে নেন হাসিন।
প্রেমের বিষয়টি উল্লেখ করে হাসিনের বান্ধবী অমাইশা নুপুর (ঙসধরংযধ ঘঁঢ়ঁৎ) তাঁর ফেসবুক ওয়ালে লিখেছেন, ‘এতো হাসিখুশি মানুষ তুমি ছিলা, কিন্তু ভেতরে এতোটা ভেঙ্গেচুড়ে ছিলা, কেউ তোমার হাসির আড়ালের দুঃখটা খুঁজে দেখেনি। কাউকে বুঝতেও দাওনি। ভালোবাসার মানুষটা অন্য কারোর হওয়ার কষ্টটা কোনো মানুষই মানতে পারে না। প্রেম করবে একজনের সাথে আর বিয়ে করে অন্য কাউকে। এরা ১ মিনিটেই বদলে যেতে পারে, মুহূর্তেই অনেকদিনের সম্পর্ককে গলাটিপে হত্যা করতে এদের বুক একটুও কাঁপে না। কারণ এটা তখন নতুন প্রেমের নেশায় নিজের বিবেক- মনুষত্ববোধকে মেরে ফেলে, চিন্তাও করে না ঐ মানুষটা তাকে ছাড়া থাকবে কি করে। এরা তো ঠিকই নতুন মানুষটার সাথে হাসিখুশি দিন কাটায়, কষ্ট এদের একটুও ছোঁয় না। কষ্টে থাকে তারা, যারা এদের মতো বেঈমানদের বিশ্বাস করে, মন থেকে ভালোবাসে, একসাথে থাকার স্বপ্ন দেখে। বিনিময়ে পায় জীবন্ত লাশ হয়ে বেঁচে থাকা আর না হয় এভাবে লাশ হয়ে যায়...’





© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};