ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
ব্রাহ্মণপাড়ায় পাহাড়ি ঢলে হেলে গেছে সেতু, সড়ক ভেঙ্গে খালে
Published : Tuesday, 14 July, 2020 at 12:00 AM, Count : 128
যানবাহন ও যাত্রীরা ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে মরণ ফাঁদ--
ইসমাইল নয়ন ॥ কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চান্দলা টানাব্রীজ থেকে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার কসবা উপজেলার মন্দভাগ-বায়েক সড়কের চান্দলা রামচন্দ্রপুর সংলগ্ন একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্রীজ পাহাড়ী ঢলে হেলে গিয়েছে। এছাড়াও ওই ব্রীজের পশ্চিম অংশে বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের পানিতে ভেঙ্গে খালে বিলীন হয়েছে। পরিনত হয়েছে এক মরণফাঁদে। গত এক সপ্তাহ যাবত শতভাগ ঝুঁকি নিয়ে এই ব্রীজটি দিয়ে প্রতিনিয়ত পারাপার হচ্ছে পিক্যাপভ্যান, সিএনজি, অটোরিক্সাসহ শত শত ছোট ছোট যানবাহন। পথচারীরাও নেই ঝুঁকির বাহিরে।
কসবার মন্দভাগ বাজার থেকে আসা সিএনজি অটোরিক্সার চালক সোহেল জানান, গত ৫-৭ দিন হয়, সীমান্ত এলাকার পাহাড়ী ঢলের পানির ¯্রােতে এই ব্রীজটির পশ্চিম অংশের সড়কের মাটি সরে গিয়ে কয়েকটি গাছ খালে পরে যায়। এছাড়াও ব্রীজের পশ্চিম অংশের মাটি সরে ব্রীজটি খালের দিকে হেলে গেছে। পরে আমরা চালকরা ব্রীজের পশ্চিম অংশের কিছু অংশ প্রাথমিক ভাবে মাটি দিয়ে সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করলেও গতকালকের টানা বৃষ্টিতে তাও ভেঙ্গে আবারো খালে বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমানে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীদের গাড়ি থেকে নামিয়ে এই ব্রীজটি দিয়ে আমাদের যানবাহন পারাপার করছি। এই ব্রীজের পশ্চিম অংশ দ্রুত সংস্কার না করা হলে আজকের পর মনে হয় এভাবেও আর চলা করা সম্ভব হবে না।
সিএনজি যাত্রী দেউস গ্রামের আবু বকর বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে এই ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচল করছি। সিএনজি চালকরা এই ব্রীজের এসে আমরা যাত্রীদের নামিয়ে ঝুঁকি নিয়ে তাদের যানবাহন পারপার করে। এই ব্রীজটি যানবাহন চলাচল ও যাত্রীদের জন্য যেমন মৃত্যুর ফাঁদ, তেমন পথচারীদের জন্য শতভাগ ঝুঁকি।
স্থানীয় বাসীন্দা ফুল মিয়া ও কামাল হোসেন জানান, চান্দলা টানাব্রীজ থেকে মন্দভাগ বাজার ও বায়েক সড়কটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। দুই উপজেলার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্য এই সড়কের চান্দলা রামন্দ্রপুর এলাকার এই ব্রীজটির পশ্চিম অংশের সড়কের মাটি ভেঙ্গে খালে বিলীন হয়ে যাওয়ায় ও ব্রীজটি হেলে যাওয়ায় এই সড়কে চলাচলকারী যানবাহন ও যাত্রীরা এবং আমরা স্থানীয়রা চরম ভোঙ্গান্তিতে পরেছি। আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, তারা যেন দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft