ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
454
অসহায় এক পিতার আকুতি
Published : Wednesday, 16 September, 2020 at 9:24 PM
অসহায় এক পিতার আকুতিশাহীন আলম, দেবিদ্বার।
কুমিল্লার দেবিদ্বারে দেলোয়ার হোসেন নামে এ প্রতারক ছেলের  অত্যাচার নির্যাতন মিথ্যা মামলা, জাল দলিল করে সম্পদ হাতিয়ে নেওয়া, নিজের প্রতিবন্ধী ভাইকে হত্যাসহ বিভিন্ন অন্যায় অত্যাচার রক্ষা পেতে  সংবাদ সম্মেলন করেছেন  ছৈয়দুর রহমান নামে এক বৃদ্ধ। ডা. ছৈয়দুর রহমান (৮৫) মুরাদনগর উপজেলার বাইড়া গ্রামের বাসিন্দা। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় দেবিদ্বার নিউ মার্কেটের একটি রেস্তোরায় ছেলে দেলোয়ারের বিভিন্ন নির্যাতনের বর্ণনা দেন ওই পিতা। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন নির্যাতিত ছৈয়দুর রহমানের দুই ছেলে মো. শাহাদত হোসেন ভূঁইয়া, শেখ মো. মোহন, বড় জামাতা সাবেক ইউপি সদস্য মো.শহীদুল হক ভূঁইয়া।
সংবাদ সম্মেলনে অসহায় ওই বৃদ্ধ পিতা জানান, আমার ছেলে দেলোয়ার খুব জগন্য। তাকে সম্পত্তি লেখে দেওয়ার জন্য সে আমার ওপর চাপ সৃষ্টি করে বিভিন্ন সময়ে শারীরিক নির্যাতন করে আসছে। এমনকি আমার অন্য ছেলেদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছে। তার অত্যাচারের কারণে আমি দীর্ঘ ৭মাস বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। আমি তার অত্যাচার থেকে বাঁচতে বিভিন্ন মহলে গিয়েও কোন প্রতিকার পাইনি। সবশেষে আমি সাংবাদিকদের দারস্থ হয়েছি।
দেলোয়ার বিরুদ্ধে মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলে সুমনকে হত্যা অভিযোগ করে বৃদ্ধ পিতা ছৈয়দুর রহমান তাঁর লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন , সুমন যেদিন মারা যায় তার দু’দিন আগে রাত সাড়ে ১০টার দিকে দেলোয়ার সুমনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর দুই দিন পর দেবিদ্বার উপজেলার গোপালনগরের একটি খাল থেকে সুমনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সংক্রান্ত আমি আদালতে দেলোয়ারকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছি। যা বর্তমানে চলমান রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, দেলোয়ার আমাকে মানুষের কাছে পাগল মানসিক রোগী ও স্ট্রোক করেছি বলে মিথ্যা কথা বলে বেড়ায়।  প্রকৃত পক্ষে আমি সুস্থ ও স্বজ্ঞানে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য প্রদান করছি। আদালতে মিথ্যা স্বাক্ষ্য দিতে রাজী না হওয়ায় আমার মৃত প্রতিবন্ধী ছেলের বউ হাসিনা আক্তার ১৫ মাস যাবৎ তার বাবার বাড়িতে এক ছেলে নিয়ে অসহায় দিনযাপন করছে। সে আমাকে নানাভাবে হত্যার হুমকি দেয়। আমার অন্য ছেলেদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসাবে বলেও হুমকি দেয়। এমনকি দেলোয়ার আমার নাতি নাতনীদের সম্পত্তি ভোগ দখল করার জন্যও তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানি করে আসছে।  তার নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে আমার পুরো পরিবার। তার কারণে আমার পুরো পরিবার ধ্বংস হয়ে গেছে। আমার বয়স প্রায় শেষ আমি এ বয়সেও তার অত্যাচার থেকে রেহাই পাচ্ছি না। নিজ পুত্র দেলোয়ার একজন মামলাবাজ, প্রতারক, ধান্ধাবাজ, ভূমিদূস্য, ডাকাত আখ্যায়িত করে তাকে শাস্তি দেয়ার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ওই বৃদ্ধ পিতা।
ছৈয়দুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ মো.মোহন সাংবাদিকদের জানান, তার ভাই দেলোয়ারের মিথ্যা মামলায় আমাদের পুরো পরিবার অতিষ্ঠ। সে আমার বাবাকে প্রকাশ্যে দা দিয়ে কুপিয়েছ্।ে যার দাগ বাবার শরীরের এখনও আছে। সংবাদ সম্মেলনে আমার বড় ভাই শাহাদত হোসেন উপস্থিত আছেন তিনি সব কিছু দেখেছেন।  দেলোয়ার আমার এ ভাইয়ের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে। আমরা তার সুষ্ঠু ততন্ত পূর্বক বিচার চাই। 

ছৈয়দুর রহমানের বড় ছেলে শাহাদত হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, দেলোয়ার একজন লোভী মানুষ। তার অত্যাচার নির্যাতনের শিকার হয়েছে এলাকার বহু মানুষ। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার ও প্রতিকার চাই। 
এব্যাপারে অভিযুক্ত পুত্র দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমার ভাইয়েরা আমার বাবাকে ব্যবহার করে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যা কিছু অভিযোগ দায়ের করেছে। আমার বাবা গত এক বছর যাবৎ বাড়িতে নেই। আমার নামে ষড়যন্ত্র করছে। আমি কারও বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেনি। তারা আমার বাবাকে মিথ্যা কথা বলাতে বাধ্য করছে।






© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};